দেখে নিন ইংরেজিতেও রচনা

বই মেলা রচনা (Book Fair Essay in Bengali) [PDF]

banglarachana.com এ আপনাকে স্বাগত।নিয়মিত নতুন নতুন প্রবন্ধ রচনা নিয়ে হাজির হই আমরা।আজকের রচনার নাম – “বই মেলা

বইমেলা" রচনা

ভূমিকা:

বর্তমানে মেলা শুধু গ্রামীণ মেলাতে সীমাবদ্ধ নয়।

সম্প্রতি অনেকাংশে দেখা যাচ্ছে কৃষি মেলা,শিল্প মেলা,বই মেলা প্রভৃতি। পৃথিবীর প্রায় সকল দেশেই আয়োজিত হয়ে থাকে বই মেলা বা গ্রন্থ মেলা। বই ছাড়া শিক্ষিত জ্ঞান পিপাসু মানুষরা একপ্রকার অচল। পারস্যের কবি ওমর খৈয়াম বলেছেন-

“রুটি মদ ফুরিয়ে যাবে, প্রিয়ার কালো চোখ ঘোলাটে হয়ে যাবে; কিন্তু একখানা বই অনন্তযৌবনা যদি তেমন বই হয়।”

সেই অনন্তযৌবনা বইটির খোঁজ মিলবে “বইমেলা” নামক বইয়ের রাজ্যে।এগুলো হলো মূলত প্রদর্শনী ।কিন্তু প্রদর্শনী হলেও বিপুল জনসংগম মেলার পরিবেশ সৃষ্টি করে _পারস্পরিক দেখা সাক্ষাৎ,আলাপ পরিচয়,ভাবের আদান প্রদান হয়।তাই “মেলা” আখ্যা দেওয়া নিরসন্দেহে সার্থক।

বই মেলার সাংগঠনিক দিক ও উপযোগিতা:

বই মেলা সংগঠনের পেছনে থাকে প্রধানত তিন শ্রেণীর মানুষ।

  • মেলার উদ্দ্যোক্তা – এনারাই মেলা পরিচালনা করেন।
  • প্রকাশক সংস্থা – এনারা বিভিন্ন বইয়ের সম্ভার নিয়ে হাজির হয়ে বই মেলাকে সাজিয়ে তোলেন।
  • দর্শক – সময় বিশেষে ক্রেতা।


মেলা উদ্যোক্তা,প্রকাশক,দর্শক এই তিনের সমন্বয়ে বই মেলা হয়ে ওঠে সার্থক।বই আমাদের পরম বন্ধু।সমাজকে সত্য ও ন্যায়ের পথে পরিচালিত করতে প্রয়োজন সঠিক শিক্ষা আর সেই শিক্ষা আমরা পেয়ে থাকি বই থেকে।ম্যাক্সিম গোর্কি বলেছেন-

“আমার মধ্যে উত্তম বলে যদি কিছু থাকে তার জন্যে আমি বইয়ের কাছে ঋণী।”

বই মেলার উদ্দেশ্যই হল – মানুষ বেশি করে গ্রন্থ প্রেমিক হোক,নানা রকমের বই দেখা ,নাড়া চাড়া করার মধ্য দিয়ে বই এর প্রতি আকৃষ্ট হোক।কর্ম মুখী মানুষ যারা সময় পান না বই কেনার তারাও মেলার আকর্ষণে ছুটে আসেন পরিবার ছেলে মেয়েদের নিয়ে।বাচ্চা ছেলে মেয়েরা মেলার আনন্দের মধ্য দিয়ে নতুন নতুন বই এর সাথে পরিচিত হয়।মেলার আনন্দের মধ্য দিয়ে এভাবেই শিক্ষার বিস্তার ঘটে।

বইমেলা ও গণচেতনা:

পাঠকের মনে বিপ্লব ঘটাতে সক্ষম একটি বই।বিভিন্ন গণমাধ্যম যেমন রেডিও, টিভি ,খবরের কাগজ প্রভৃতির মতো বইও গণচেতনা সৃষ্টিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। গণচেতনা বেশ কয়েকটি বিষয়ের উপর নির্ভরশীল
যেমন – সামাজিক বোধ সৃষ্টি,সুস্থ সাংস্কৃতিক বোধের উন্মেষ,বৈজ্ঞানিক চিন্তাভাবনার বিকাশ প্রভৃতি।

আপামর জনসাধারণের মধ্যে এই সমস্ত গুণের বিকাশ ঘটাতে পারলে অস্বীকার করার অবকাশ থাকেনা যে গণচেতনা সৃষ্টিতে বইমেলার ভূমিকা যথেষ্ট।তবে যে দেশে নিরক্ষর মানুষের পরিমাণ এতো বেশি সেই দেশে বইমেলা গণচেতনা সৃষ্টিতে কত খানি সফল তা নিয়ে একটা প্রশ্ন থেকেই যায়।

বইমেলা প্রভাবিত করে শিক্ষিত মধ্যবিত্ত ও কিছু আগ্রহী মানুষদের সেখানে অক্ষর জ্ঞানহীন আপামর জনসাধারণের গ্রন্থ জগতের আনন্দভোজে অংশ নেওয়ার ক্ষমতা থাকে কি?

পারস্পরিক ভাব বিনিময়: 

মেলা মানেই মিলন, তা গ্রামীণ মেলা হোক বা বই এর মেলা।প্রতি দিনের ব্যস্ত একঘেয়েমি জীবনকে দূরে সরিয়ে মেলা এনে দেয় আনন্দ প্রশান্তি।

বই মেলার উন্মুক্ত পরিবেশে একে অপরের সাথে আলাপ আলোচনায় নতুন সম্পর্ক গড়ে ওঠে ,প্রকাশকরা বুঝতে পারেন ক্রেতার চাহিদা। সারা দেশ থেকে আসা কবি, সাহিত্যিক, লেখক সাংবাদিক, সংস্কৃতিকর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে মেলার প্রাঙ্গণ।

ভক্ত পাঠকরা নিজের প্রিয় লেখকের সাথে দেখা করার সুযোগও পেয়ে থাকে বইমেলায়।পাঠকের সাথে লেখকদের মিলনের এক সহজ সরল মাধ্যম বইমেলা।

উপসংহার:

আমাদের দেশেও বইমেলার জনপ্রিয়তা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে।

সম্প্রতি অনেকাংশে গ্রন্থাগার গুলি বইমেলা থেকে বই নির্বাচন করে কিনছে।জেলা গ্রন্থাগার গুলির ক্ষেত্রে এরকম সরকারি নির্দেশ রয়েছে।তবে উন্নত রুচি ও মানের গ্রন্থ নির্বাচন করে কেনা হলে গ্রন্থাগার গুলির দিক থেকে তা যেমন ভালো হবে তেমনি বইমেলার সার্থকতা আসবে প্রকাশনা সংস্থা গুলির আর্থিক সমৃদ্ধির মাধম্যে।


“বইমেলা” রচনাটি আপনার কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।পরবর্তীতে এরকম আরও অনেক প্রবন্ধ রচনা পাওয়ার জন্যে আমাদের অনুসরণ করুন।আপনি আপনার প্রয়োজনের রচনা আমাদের সাজেস্ট করতে পারেন। সাজেস্ট করার জন্য হোমপেজে গিয়ে suggest us এ ক্লিক করুন।

আর পড়ুন

Paribesh Dushan o Tar Protikar
বাংলার উৎসব
গাছ আমাদের বন্ধু
স্বামী বিবেকানন্দ রচনা
Print Friendly, PDF & Email
English Essay, Autobiography, Grammar, and More...

Rakesh Routh

আমি রাকেশ রাউত, পশ্চিমবঙ্গের ঝাড়গ্রাম জেলায় থাকি। মেকানিকাল বিভাগে ডিপ্লোমা করেছি, বাংলায় কন্টেন্ট লেখার কাজ করতে ভালোবাসি।তাই বর্তমানে লেখালেখির সাথে যুক্ত।

2 thoughts on “বই মেলা রচনা (Book Fair Essay in Bengali) [PDF]

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

 

Recent Content