খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা রচনা (Khela Dhular Proyojoniota in Bengali)[PDF]

সমস্ত রকমের বাংলা প্রবন্ধ রচনার একমাত্র ঠিকানা banglarachana.com এ আপনাকে স্বাগত।
Banglarachana.com এর পক্ষ থেকে আজকের নতুন প্রবন্ধ রচনা – “খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা”

“দুর্বল মস্তিষ্ক কিছু করতে পারেনা। আমাদেরকে ইহা পরিবর্তন করে সবল মস্তিষ্ক হিসেবে তৈরি করতে হবে। তোমরা সবল হও, গীতাপাঠ অপেক্ষা ফুটবল খেলিলে তোমরা স্বর্গের সমীপবর্তী হবে।”
স্বামী বিবেকানন্দ।

khela dhular proyojoniota in bengali

ভূমিকা:

মানুষের সহজাত আকাঙ্ক্ষা হলো এক সুন্দর ও সুস্থ জীবন।”health is wealth”- স্বাস্থ্যই সম্পদ। ব্যাক্তিগত জীবনে,পারিবারিক জীবনে, জাতীয় জীবনে শক্তি ও সমৃদ্ধি অর্জনের দ্বার উন্মুক্ত করে দেয় সুঠাম দেহ– ললাট দেশে এঁকে দেয় সাফল্যের জয় তিলক। অপরপক্ষে রুগ্ন দুর্বল মানুষ জীবনের সকল আনন্দ থেকে বঞ্চিত। খেলাধুলো শরীরচর্চার একটি অঙ্গ।খেলার মধ্যে রয়েছে শরীর চালনা।যা মানুষের শারীরিক দক্ষতা ক্রমশ বাড়িয়ে তোলে।পাশাপাশি অন্তহীন আনন্দের উপকরণ হল খেলা। খেলার আনন্দ আর কোথাও পাওয়া যাবে না।যারা রুগ্ন দুর্বল তারা এই আনন্দ থেকে বঞ্চিত এমনকি জীবন যুদ্ধে পদে পদে হয় পরাভূত এই জন্যই বলা হয়-“চাই বল,চাই স্বাস্থ্য,আনন্দ উজ্জ্বল পারমায়ু, সাহস- বিস্তৃত বক্ষপট”।

খেলাধুলার উপযোগিতা:

সুস্থ সবল দেহে সুস্থ সবল মন বিরাজ করে।অসুস্থ শরীরে পরিশ্রম ক্ষমতা কমার সাথে সাথে মন ও খিট খিটে হয়ে যায়।সুস্থ সবল দেহে বিরাজ করে কঠোর শক্তি,মনে থাকে দুর্জয় ক্ষমতা, অপরিমিত উৎসাহ ও উদ্দীপনা। কঠোর পরিশ্রম করে জীবনে সাফল্য অর্জন করতে হয় তাই মন ও শরীরকে সুস্থ রাখতে খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তা অপরসীম। খেলাধুলা মানেই শরীরচর্চা আর নিয়মিত শরীরচর্চার মাধ্যমেই শরীরকে দীর্ঘদিন সুস্থ রাখা যায়।

খেলাধুলার প্রকৃতি:

যাকে আমরা সহজ ভাষায় খেলাধুলো বলি তার প্রকৃত স্বরূপ জেনে নেওয়া আমাদের অবশ্যই দরকার। এখানে খেলার সাথে ধুলা শব্দটি সংযোজিত হয়েছে। অর্থাৎ খেলার সাথে রয়েছে ধুলার সংস্পর্শ। প্রকৃতির উন্মুক্ত প্রান্তরে খোলা আকাশের নীচে মুক্ত বাতাসে যে খেলা হয় তা-ই খেলাধুলা। যেমন – ফুটবল, ক্রিকেট, দৌঁড়,লাফ,টেনিস, প্রভৃতি। বর্তমানের মোবাইল গেমের মধ্যে রয়েছে অনেক ক্ষতিকর প্রভাব তাই খেলার প্রকৃতি অনুসারে খেলাকে খেলাকে বেছে নেওয়া আবশ্যক।

স্কুল জীবনে খেলাধুলো:

বর্তমান খেলাধুলার বয়সে শৈশবেই শিশুর কাঁধে চেপেছে বই -এর বোঝা।
বাল্য কাল থেকে তরুণ বয়স শরীর গঠনের প্রধান সময় বলে শরীরচর্চা ও ব্যায়ামের পাঠক্রম গৃহীত হয়েছে সকল সভ্যদেশের স্কুল কলেজীয় শিক্ষা পর্যায়ে। ছাত্র ছাত্রীদের শরীরচর্চার জন্য খেলাধুলো ও ব্যায়াম বহুরকম – দৌঁড়ঝাপ, ক্রিকেট,ফুলবল,হাডুডু, সাঁতার, যোগাসন ইত্যাদি।একজন সুস্থ সবল সফল মানুষ হতে বিদ্যালয়ে পড়াশোনার পাশাপাশি খেলাধুলার প্রয়োজনও রয়েছে।

খেলাধুলা ও ভাতৃত্ববোধ:

আজকের সময়ে খেলাধুলা বিশ্বব্যাপী অত্যন্ত জনপ্রিয়। ছাত্র জীবন থেকেই রাজনীতির ময়দান যখন তিক্ত কলহে কলুষিত, খেলার খোলা মাঠ তখন বিশ্ব ভাতৃত্বের প্রতীক।মানুষকে প্রীতির বন্ধনে বাঁধে খেলাধুলো।ভাতৃত্ববোধের সহৃদয় এক উষ্ণ আনন্দের বাতাবরণে হারিয়ে যায় জয় পরাজয়ের হিসেব। খেলোড়ার এর প্রতি থাকে সমর্থকদের ভালোবাসা। প্রত্যেক দলের সমর্থকরা চায় তাদের মনের মত দল জিতুক কিন্তু এখানে হার জিত বড়ো কথা নয়।বড়ো কথা হলো খেলা। খেলার মাঠে একদিকে যেমন প্রতিযোগিতা তেমনই বিনোদন। খেলার মাঠ ভিন্ন দেশের খেলোয়াড়ের সাথে খেলোয়াড়ের বন্ধুত্ব স্থাপনের জায়গা।

খেলাধুলো ও চরিত্র গঠন:

আমাদের সকলের খেলার প্রতি রয়েছে এক সম্মোহনী আকর্ষণ।যে মানুষ খেলতে ভালোবাসে তার মনে কখনও সংকীর্ণতা মলিনতার জায়গা হয়না।যেকোনো খেলাতেই কৃতিত্ব অর্জন করতে হলে প্রয়োজন শৃঙ্খলাবোধ তাই খেলাধুলার মধ্য দিয়েই জন্ম হয় শৃঙ্খলাবোধ। খেলাধুলো শুধু শরীর গঠন করে না,গঠন করে স্বভাব চরিত্র। খেলা ধুলোর মধ্য দিয়েই তৈরী হয় খেলোয়াড় সুলভ মনোভাব।পুরুষ চৈতন্যের প্রাথমিক অভ্যুদয় ঘটে খেলার মাঠে –Sportsman-like-spirit নামে অভিহিত যা।

খেলাধুলার মান:

দিনদিন বাড়ছে খেলা ধুলোর মান। প্রত্যেক খেলোয়াড় প্রতিনিয়ত নিজেকে দক্ষ করতে ব্যাস্ত। প্রতিবছরের পুরনো রেকর্ড ভাঙছে নতুন নতুন খেলোয়াড়। এব্যাপারে প্রত্যেক দেশ ও সরকার এখন সচেতন। খেলাধূলা- কে আজ দেশ ও জাতির অগ্রগতির দর্পণ বলে মনে করা হয়।

উপসংহার:

জীবনের লম্বা রাস্তা মোটেই সোজা নয়। প্রত্যেক পদে পদে মানুষকে নানান বাধা বিপত্তির সম্মুখীন হতে হয়।তাই নীরোগ সুস্থ সবল শরীরে প্রয়োজন সকল সকল বাধা কাটিয়ে ওঠার শক্তি।এজন্য খেলাধুলো প্রয়োজন। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কণ্ঠে কণ্ঠ মিলিয়ে তাই কামনা করি :
“চাই বল,চাই স্বাস্থ্য,আনন্দ উজ্জ্বল পারমায়ু, সাহস- বিস্তৃত বক্ষপট”।


রচনাটি আপনার কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।আপনার প্রয়োজন ও পছন্দের খেয়াল রাখি আমরা। এরকম আরও রচনা পাওয়ার জন্য follow করুন banglarachana.com

আর পড়ুন

Paribesh Dushan o Tar Protikar
বাংলার উৎসব
গাছ আমাদের বন্ধু
আমার প্রিয় বই

উল্লেখ: Bengali essays | Open Library

Print Friendly, PDF & Email
লেখক পরিচিতি

Rakesh Routh

Facebook

আমি রাকেশ রাউত, পশ্চিমবঙ্গের ঝাড়গ্রাম জেলায় থাকি। মেকানিকাল বিভাগে ডিপ্লোমা করেছি, বাংলায় কন্টেন্ট লেখার কাজ করতে ভালোবাসি।তাই বর্তমানে লেখালেখির সাথে যুক্ত।

এই লেখকের কাছ থেকে আরও পড়ুন

Post টি Share করতে ভুলবেন না

Comments 2

    1. Post
      Author

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।