ঈদ রচনা [Eid Rachana in Bengali with PDF]

banglarachana.com এ আপনাকে স্বাগত জানাই। নিয়মিত নতুন নতুন প্রবন্ধ রচনা পাওয়ার জন্য আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন। আজকের রচনা – ঈদ।

ঈদ রচনা

ভূমিকা:

দৈনন্দিন জীবনের সংকীর্ণ গণ্ডি থেকে মিলনের বৃহত্তর ক্ষেত্রে মানুষকে উত্তীর্ণ করে যেকোনো উৎসব অনুষ্ঠান।ঈদ মুসলমান সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব।ঈদ শব্দের অর্থ খুশি বা আনন্দ।প্রত্যেক মুসলমান বাড়িতে পালিত হয় ঈদ।নাচে গানে, শ্রদ্ধা ভক্তিতে,পারস্পরিক প্রীতি শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা বিনিময়ের মধ্য দিয়ে হৃদয়ের সব দরজা খুলে সম্পূর্ণ ভাবে নিজেকে অভিব্যক্ত করতে পারে মানুষ উৎসবের এই দিন গুলিতে।বছরের দুটি পর্যায়ে ঈদের উৎসব পালিত হয়।প্রথম পর্যায়ে ইদুলফিতর ও পরে দ্বিতীয় পর্যায়ে ইদুজ্জোহা।

উদুলফিতর অনুষ্ঠান পর্ব:

গোটা রমজান মাস ধরে রোজা পালন করা হয়।সূর্য ওঠা থেকে সূর্য অস্ত যাওয়া পর্যন্ত চলে নিরম্বু উপবাস।এই উপবাসের মধ্যেই চলে ব্যাস্ত জীবনের সব কাজকর্ম।সারাদিন ধরে উপবাস থেকে সূর্যাস্তের পর যখন রাত্রি নামে তখন চলে কোরান পাঠ ও শ্রবণ।পুরো একমাস ধরে এভাবে আত্ম শুদ্ধির পর বহু প্রত্যাশিত শওয়াল মাসে পবিত্র দিনে শুরু হয় ইদুলফিতর অনুষ্ঠান পর্ব।মুসলমান সম্প্রদায়ভুক্ত সব বয়সী নারী পুরুষ শ্রদ্ধার সঙ্গে ঈদের আকলঙ্ক চাঁদ দর্শন করে প্রকাশ করে আনন্দ ও উল্লাস।সব মসজিদে নামাজ চলতে থাকে।খোদাতাল্লার উদ্দেশ্যে নিবেদিত হয় হৃদয় উজাড় করা বিনীত আকুতি ও গভীর শ্রদ্ধা ভক্তি।তারপর শুরু হয় মিলনের উৎসব।ধনী গরীব নির্বিশেষে একে অপরকে কোলাকুলি করে সব মুসলমানগণ মেতে ওঠে এই উৎসবে।

ইদুজ্জোহা অনুষ্ঠান পর্ব:

জিলহিজ মাসের ১০ তারিখে যে ঈদ পালিত হয় তা হলো ইদুজ্জোহা।এর আর্ধাত্মিক গভীরতা আরও বেশি তাৎপর্যবহ।এটি একটি খুবই পবিত্র অনুষ্ঠান।এই অনুষ্ঠানের পেছনে রয়েছে নবিশ্রেষ্ঠ হযরত ইব্রাহিমের এক নিষ্ঠ ঈশ্বর ভক্তির এক অপূর্ব নিদর্শন।

‘আল্লার নির্দেশে ‘ জিলহিজ মাসের দশ তারিখে এক কঠিন কঠিন ভক্তি পরীক্ষার সম্মুখীন হন ইব্রাহিম।আল্লার নির্দেশ ছিল নিজের পুত্রকে কোরবানি করে ইব্রাহিমকে তার ভক্তির পরিচয় দিতে হবে।এই ভয়নক নির্দেশ পালন করতে হযরত ইব্রাহিম পিছিয়ে পড়েননি।এই নির্দেশ পালনে তিনি তার পুত্র হযরত ইসমাইলকে মাটিতে শোয়ালেন কিন্তু তার গলায় ছুরি বিদ্ধ হলোনা।আল্লাহ এই আন্তরিকতায় মুগ্ধ হয়ে ইব্রাহিম পুত্র হযরত ইসমাইলের পরিবর্তে একটি পশু কোরবানি করার আদেশ দেন এবং তা কবুল করেন।এই থেকেই জিলহজ্ব মাসের দশ তারিখে এই উৎসব পালন করা হয়। এদিনে মুসলমানগণ গরু,ছাগল, উট প্রভৃতি কোরবানি করেন।এই অনুষ্ঠানেও মসজিদে মসজিদে নামাজ চলে।সেই সাথে চলে দানধ্যানের পূণ্য কাজ।ধনী গরীব নির্বিশেষে সবাই মিলেমিশে আনন্দে মেতে ওঠে।

ঈদ উৎসবের তাৎপর্য:

ঈদ মুসলমান সম্প্রদায়ের সার্বজনীন উৎসব। মহরমও এই সম্প্রদায়ের আরও এক অন্যতম উৎসব।কিন্তু তা মুসলমান ধর্ম সম্প্রদায়ের এক বিশেষ গোষ্ঠীর অনুষ্ঠান।কিন্তু এই সম্প্রদায়ের সকল মানুষের মিলনের অনুষ্ঠান।এই মুলে কোনো ধর্মচরণ নেই আছে আত্মশুদ্ধির দুশ্চর ব্রত।আল্লাহের কাছে শ্রদ্ধা নত চিত্তে আত্ম নিবেদনের প্রয়াস।

উপসংহার:

ঈদ মানেই মুসলমান সম্প্রদায়ের সকল মানুষের মধ্যে ভেদাভেদ শত্রুতা ভুলে বুকে বুক মিলিয়ে কোলাকুলি করা।তবে এটাও খেয়াল রাখতে হবে যে ধর্মান্ধতা উৎসবের মধ্যে যেন ভাতৃত্ব বোধের মহান আদর্শকে গ্রাস না করে বরং ভাতৃত্ব বোধ সাম্প্রদায়িকতার সংকীর্ণ বেড়া ডিঙিয়ে অন্য সম্প্রদায়ের মানুষের মাঝে সম্প্রসারিত হয়ে ঐক্য সূত্র গড়লে তা আমাদের মতো বহু ধর্মের দেশে হবে বাঁচার পথ,পরিত্রাণের পথ।


“ঈদ রচনাটি” পড়ে আপনার কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানান। বানানগত ভুল জানানোর জন্য বা অন্য যে অন্য যেকোনো সহায়তার জন্য আমাদের কমেন্ট করুন।আমাদের সাথে যুক্ত থাকার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

আর পড়ুন

দুর্গাপূজা রচনা
ইন্টারনেট রচনা
সময়ের মূল্য রচনা
বৃক্ষরোপন ও বনসংরক্ষণদৈনন্দিন জীবনে বিজ্ঞান রচনা
বই মেলা রচনা

উল্লেখ: https://bn.wikipedia.org/wiki/%E0%A6%88%E0%A6%A6

Print Friendly, PDF & Email
English Essay, Autobiography, Grammar, and More...

Rakesh Routh

আমি রাকেশ রাউত, পশ্চিমবঙ্গের ঝাড়গ্রাম জেলায় থাকি। মেকানিকাল বিভাগে ডিপ্লোমা করেছি, বাংলায় কন্টেন্ট লেখার কাজ করতে ভালোবাসি।তাই বর্তমানে লেখালেখির সাথে যুক্ত।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

 

Recent Content

link to জনমত গঠনে সংবাদপত্রের ভূমিকা প্রবন্ধ রচনা বা সংবাদপত্র রচনা [PDF]

জনমত গঠনে সংবাদপত্রের ভূমিকা প্রবন্ধ রচনা বা সংবাদপত্র রচনা [PDF]

banglarachana.com এ আপনাকে স্বাগতম। পঞ্চম শ্রেণী থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত বাংলা...