দেখে নিন ইংরেজিতেও রচনা

সুশিক্ষিত লোক মাত্রেই স্বশিক্ষিত ভাবসম্প্রসারণ [PDF]

banglarachana.com এ আপনাকে স্বাগত জানাই।পঞ্চম শ্রেণী থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত বাংলা সিলেবাসের ব্যাকরণ, গুরুত্বপূর্ণ রচনা,নমুনা সহকারে পত্রলিখন pdf সহ পাওয়ার জন্য আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন।নিয়মিত নতুন নতুন লেখা আপডেট করা হয়।আমাদের পক্ষ থেকে আজকের নতুন উপস্থাপন – সুশিক্ষিত লোক মাত্রেই স্বশিক্ষিত ভাবসম্প্রসারণ।

বিদ্যালয়- কলেজের শিক্ষা হল পরীক্ষা পাশ করার শিক্ষা।বর্তমান সময়ে স্কুল কলেজের ছাত্রছাত্রীদের শিক্ষার মৌল উদ্দেশ্যই হল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়া।পড়াশোনা এখন আর কেউ জ্ঞান অর্জন করার জন্য করেনা,পড়াশোনা করে জীবিকা অর্জন করায় এখন প্রধান উদ্দেশ্য।স্কুল কলেজের পরীক্ষার প্রতিযোগিতায় যারা ভালো নম্বর পাবে তাদের ভবিষ্যতের নিশ্চয়তাও ততবেশি।আমাদের সমাজে প্রচলিত এই শিক্ষা ব্যাবস্থা আমাদের ঠিক কতখানি শিক্ষিত করে তুলছে, তা উদ্ধৃত বাক্যটির মধ্যেই নিহিত রয়েছে।

একজন উচ্চ শিক্ষিত ব্যাক্তি যখন পরিবারের মঙ্গল কামনায় ভগবানের নামে পশু বলি করেন কিংবা চন্দ্র সূর্যগ্রহণের বৈজ্ঞানিক কারণ গুলি জানা সত্ত্বেও গ্রহণের সময় গঙ্গা স্নান করতে ছোটেন ,তখন খুব পরিষ্কার হয়ে যায় যে শিক্ষার সঙ্গে তাঁর জীবনচর্চা এর কোনো সংযোগ ঘটেনি।ডিগ্রিধারী ব্যাক্তি যখন বৈজ্ঞানিক যুক্তি অস্বীকার করে তাবিজ কবজের মধ্যে নিরাপত্তা খোঁজেন, জাতি ধর্ম ভেদাভেদ মেনে চলেন,তখন তাদের সুশিক্ষিত বলা কোনোভাবেই ঠিক নয়।বিদ্যালয়ের পরীক্ষায় ভালো নম্বর নিয়ে পাশ করা সুশিক্ষিত হওয়ার সঠিক পথ নয়।তাহলে প্রশ্ন , সুশিক্ষিত হওয়ার সঠিক উপায় কী?নিজের নিরলস চেষ্টা ছাড়া,নিরন্তর অধ্যবসায় ব্যতীত সুশিক্ষিত হওয়ার দ্বিতীয় আর কোনো পথ নেই।অন্ধবিশ্বাস কুসংস্কারে আচ্ছন্ন একজন মানুষ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ডিগ্রী পেতে পারেন,কিন্তু তাঁকে সুশিক্ষিত বলা যায় না।যথার্থ শিক্ষা অর্জনের একমাত্র উপায় হল অবিরাম প্রচেষ্টা।প্রকৃত শিক্ষা মনকে মুক্ত বুদ্ধির আলোকে উদ্ভাসিত করে তুলবে,বৈজ্ঞানিক যুক্তি বোধে মননশীলতা য় সুতীক্ষ্ণ করে তুলবে।এই শিক্ষা বিদ্যালয়ে অর্জন করা যায় না।নিজের আগ্রহ দ্বারা বোধ বুদ্ধির সাহায্যে আয়ত্ত করতে হয় প্রকৃত শিক্ষা।


“সুশিক্ষিত লোক মাত্রেই স্বশিক্ষিত” এই একটি লাইনের মধ্যে লুকিয়ে রয়েছে এই বিশাল ভাব।এই ভাবসম্প্রসারণ আপনার কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।এরকম আরও গুরুত্বপূর্ণ ও পরীক্ষায় সম্ভাব্য ভাবসম্প্রসারণ পাওয়ার জন্য আমাদের সাথে যুক্ত থাকুন।।সম্পূর্ণ লেখাটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

Print Friendly, PDF & Email

রাকেশ রাউত

রাকেশ রাউৎ বাংলা রচনা ব্লগের নির্বাহী সম্পাদক। ইনি শিক্ষাগত যোগ্যতা অনুযায়ী একজন মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ার। ইনি বাংলা রচনার সম্পাদকীয় দলকে লিড করেন। রাকেশ দীর্ঘ ৫ বছর যাবৎ বাংলা কনটেন্ট এডিটিং এর সাথে যুক্ত আছেন। ইনি বাংলা রচনা ছাড়াও নামকরণ এবং বাংলা জীবনীর মতো নামকরা সাইটের সম্পাদকীয় দলের একজন অন্যতম সদস্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সাম্প্রতিক পোস্ট