দেখে নিন ইংরেজিতেও রচনা

মাতৃভাষায় বিজ্ঞানচর্চা বা বাংলাভাষায় বিজ্ঞানচর্চা রচনা [PDF]

banglarachana.com এ আপনাকে স্বাগতম।পঞ্চম শ্রেণী থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত বাংলা সিলেবাসের সমস্ত ব্যাকরণ গুরুত্বপূর্ণ রচনা ভাবসম্প্রসারণ সমস্ত কিছু pdf সহ পাওয়ার জন্য আমাদের সঙ্গে যুক্ত থাকুন।পরীক্ষায় সম্ভাব্য গুরুত্বপূর্ণ সমস্ত প্রবন্ধ রচনা তুলে ধরার চেষ্টা করি আমরা।তাই এখানে নেই এমন রচনা পাওয়ার জন্য রচনার নাম অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

আমরা সকলেই আমাদের মাতৃভাষাকে ভালোবাসি।মাতৃভাষায় দক্ষতা থাকার জন্য মাতৃভাষায় পড়াশোনা করতে যেমন ভালো লাগে তেমন সহজও হয়। আজের প্রবন্ধ রচনা মাতৃভাষায় বিজ্ঞানচর্চা বা বাংলাভাষায় বিজ্ঞানচর্চা।

বাংলাভাষায় বিজ্ঞানচর্চা রচনা বৈশিষ্ট্য চিত্র

ভূমিকা:

নানান দেশের নানান ভাষা

বিনা স্বদেশী ভাষা মেটে কি আশা?

প্রত্যেক মানুষেরই উচিত নিজ নিজ মাতৃভাষাকে সম্মান দেওয়া। কোনো ব্যক্তি বা মানুষের কাছে তার মাতৃভাষা সর্বোপরি হওয়া উচিত। প্রতি মানুষই নিজ নিজ মাতৃভাষায় কথা বলা সহজ মনে করেন। এর মাধ্যমেই সাধারণ মানুষ নিজের মনের কথা বা মনের ভাব সহজ উপায়‌ প্রকাশ করতে পারেন।

অন্যান্য ভাষার তুলনায় মাতৃভাষা সর্বদাই সুবিধাজনক। এটি যেমন দৈনন্দিন জীবন যাত্রার পথ, তেমনই যে কোনো ধরনের চিন্তা ভাবনা এবং জ্ঞান অর্জন করার পথ হিসেবে এর কোনো বিকল্প নেই। তাই আমরা মূলত যে ভাষায় কথা বলে অভ্যস্ত শৈশব থেকে, সেই ভাষাতেই আমরা কথা বলতে বেশি ভালবাসি। সেজন্যই দেখা যায় যে মাতৃভাষাতে জ্ঞান অর্জন এবং  জ্ঞান অনুশীলন ছাড়া কোন ব্যক্তিই জীবনে  উন্নতির শিখরে পৌঁছাতে পারেননা।

বাংলা ভাষায় বিজ্ঞানচর্চা:

বর্তমান যুগে বিজ্ঞানচর্চা সমগ্র বিশ্ব জুড়ে চলছে অনবরত। বিভিন্ন দেশে বিদেশে বিভিন্ন স্থানে মানুষ নানান রকম এর ভাষায় বিজ্ঞানচর্চা করে থাকেন। ইংরেজী ভাষায় আজ বিশ্ব জুড়ে চলছে অনবরত বিজ্ঞানচর্চা। সেই ভাষাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে এবং হচ্ছেও বর্তমানে।

কিন্তু তার সঙ্গে সঙ্গে বেশিরভাগ দেশই নিজ নিজ মাতৃভাষাতেও বিজ্ঞানচর্চা করে। আমাদের বাংলা জাতির অনেক এমন গুনবান ব্যক্তি আছে যারা আমাদের বাংলা জাতির বিজ্ঞানচর্চাকে বিশ্ব জগতে তুলে ধরেছিলেন।

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, রামেন্দ্রসুন্দর ত্রিবেদী, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, জগদীশ চন্দ্র বসু প্রমুখ জ্ঞানী ব্যক্তি আমাদের বাংলা জাতির আদর্শ নিদর্শন। এরই মধ্যে বাংলা একাডেমী বেশ ‌কয়েক সংখ্যক বিজ্ঞান বিষয়ক গ্রন্থ বাংলা ভাষায় প্রকাশ করেছেন। এছাড়া বাংলা ভাষার যে প্রয়োজনীয়তা তার দরূনই বাংলা ভাষায় রচিত হয়েছে বহু সংখ্যক গ্রন্থ।

বাংলায় বিজ্ঞানচর্চার প্রয়োজনীয়তা:

মাতৃভাষা তথা বাংলা ভাষা যে বিজ্ঞানচর্চার প্রয়োজনকে মেটাতে পারে সেটা আর দ্বিমত নয়। অনেক সাধারণ মানুষ নিজ‌ মাতৃভাষা ছাড়া বিজ্ঞানচর্চা করতে সক্ষম নয়। তাদের জন্য বাংলা‌ ভাষায় বিজ্ঞানচর্চা অত্যন্ত দরকারী।

বিদ্যালয় তথা মহাবিদ্যালয়ে এবং সব শিক্ষনীয় প্রতিষ্ঠানে বাংলা ভাষার গুরুত্ব দেওয়া খুব প্রয়োজন। এই ভাষাতেই যত বিজ্ঞানচর্চা হবে তত বেশি মানুষ নিজের দক্ষতা বৃদ্ধি করতে পারবে। এর জন্য প্রয়োজন বাংলা ভাষায় রচিত গ্রন্থ প্রকাশ যার খুবই অভাব আমাদের বাংলায়।

তাই এই অসুবিধা দূর করার জন্য আমাদের চেষ্টা করতে‌ই হবে। বিশ্বের সমগ্র দেশে প্রত্যেক ভাষার সাথে আমাদেরও তাল মিলিয়ে চলতে হবে। নাহলে আমরা অন্যান্য দেশের থেকে পিছিয়ে পড়ব।

বিদেশী ভাষার অসুবিধা:

মাতৃভাষা প্রতি মানুষের সহজাত ভাষা, আর সেই ভাষাতেই বিজ্ঞানচর্চা করাই শ্রেয়। পর ভাষা পরই থাকে। এর মাধ্যমেই সাধারণ মানুষ নিজের মনের কথা বা মনের ভাব সহজ উপায় প্রকাশ করতে পারেন।

অন্যান্য ভাষার তুলনায় মাতৃভাষা সর্বদাই সুবিধাজনক। ইংরেজ‌রা যেদিন তাদের নিজ মাতৃভাষার থেকে বেশী গুরুত্ব ফরাসী ভাষাকে দিয়েছিল, সেদিন থেকে তাদের মাতৃভাষার  উন্নতি হয়নি। তবে পরে সেই মাতৃভাষাই বিশ্ব জুড়ে বেশী গুরুত্ব পেয়েছে। তেমনই রাশিয়া দেশও তাদের মাতৃভাষাকে বিশেষ ভাবে গুরুত্ব দিয়েছে বিজ্ঞান, শিল্প সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক গবেষণার দিকে। তারা মাতৃভাষার মাধ্যমেই গৌরবময় অগ্রগতির পথে এগিয়ে যাচ্ছে।

বাংলায় বিজ্ঞানচর্চার সীমাবদ্ধতা:

এক কথায় বলতে গেলে উপযুক্ত ব্যবস্থার অভাবের জন্যই বাংলা ভাষা‌‌ বিজ্ঞানচর্চার প্রধান অন্তরায়। বিজ্ঞান ভাষায় এমন বহু শব্দ আছে যা হয়ত শুধু একটি ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব ।‌

সে সব শব্দকে বাংলা ভাষাতে অনুবাদ করা খুবই কঠিন। তাই বিজ্ঞানচর্চা যদি বাংলা ভাষায় সম্ভব হয় তাহলে খুব সহজেই বিজ্ঞানচর্চা করা সম্ভব। সর্বদা যে কোনো একটি ভাষাকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া ঠিক নয়।

সব মানুষের বোধগম্য হয় এমন কোনো ভাষার প্রতিই বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত। বাংলা ভাষার প্রতি দৃঢ় বিশ্বাস রাখতে হবে। তবে শুধু এই বিশ্বাস রাখলে হবে না তার সঙ্গে সঙ্গে এর ব্যবহারিক প্রয়োগেও স্বার্থকতা ফুটিয়ে তুলতে হবে।

উপসংহার:

ব্যক্তিগত জীবনে  শিক্ষা গ্রহণ এর মধ্য দিয়ে সমন্বয় সাধন‌ করার এক মাত্র উপায় হল‌ মাতৃভাষার মাধ্যমে শিক্ষা দান করা। শিক্ষা গ্রহণের মধ্য দিয়েই মানুষ একমাত্র প্রকৃত জ্ঞান অর্জন করতে পারে।

মাতৃভাষা সেই সমস্ত প্রকৃত শিক্ষা গ্রহণের মূল পন্থা বা অবলম্বন হওয়া উচিত। প্রতি মানুষ বা ব্যক্তির তাদের নিজস্ব মাতৃভাষাকে বিশেষভাবে গুরুত্ব দেওয়া উচিত এবং সেই ভাষাতেই শৈশবকাল থেকে বিজ্ঞানচর্চা করা উচিত। মাতৃভাষাই শুধু পারে সব ধরনের বিজ্ঞান সম্পর্কিত সন্দেহ দূর করতে। প্রত্যেক মানুষের কর্তব্য নিজ নিজ মাতৃভাষাকে উন্নতির শিখরে পৌঁছে দেওয়া।


মাতৃভাষায় বিজ্ঞানচর্চা/ বাংলাভাষায় বিজ্ঞানচর্চা রচনাটি পড়ে আপনার কেমন লাগলো কমেন্ট করে জানাবেন।আপনার একটি কমেন্ট আমাদের অনেক উৎসাহিত করে আরও ভালো ভালো লেখা আপনাদের কাছে পৌঁছে দেওয়ায় জন্য।বানান ভুল থাকলে কমেন্ট করে জানিয়ে ঠিক করে দেওয়ার সুযোগ করে দিন।সম্পূর্ণ রচনাটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

Print Friendly, PDF & Email
English Essay, Autobiography, Grammar, and More...

Rakesh Routh

আমি রাকেশ রাউত, পশ্চিমবঙ্গের ঝাড়গ্রাম জেলায় থাকি। মেকানিকাল বিভাগে ডিপ্লোমা করেছি, বাংলায় কন্টেন্ট লেখার কাজ করতে ভালোবাসি।তাই বর্তমানে লেখালেখির সাথে যুক্ত।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

 

Recent Content