দেখে নিন ইংরেজিতেও রচনা

আমার জীবনের লক্ষ্য বা তোমার জীবনের লক্ষ্য রচনা (আদর্শ ডাক্তার হওয়া) [PDF]

banglarachana.com এ আপনাকে স্বাগতম। পঞ্চম শ্রেণী থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত বাংলা সিলেবাসের সমস্ত ব্যাকরণ গুরুত্বপূর্ণ রচনা, ভাবসম্প্রসারণ সমস্ত কিছু PDF সহ পাওয়ার জন্য আমাদের সঙ্গে যুক্ত থাকুন।পরীক্ষায় সম্ভাব্য গুরুত্বপূর্ণ সমস্ত প্রবন্ধ রচনা তুলে ধরার চেষ্টা করি আমরা।তাই এখানে নেই এমন রচনা পাওয়ার জন্য রচনার নাম অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

আমাদের সকলের জীবনে কিছু না কিছু লক্ষ্য থাকে,ছাত্র জীবনে ভবিষ্যতের জন্য একটি লক্ষ্য স্থির করা ও সেই লক্ষ্য পূরণের সঠিক পথে এগিয়ে চলা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।আজকের উপস্থাপন – আমার জীবনের লক্ষ্য বা তোমার জীবনের লক্ষ্য রচনা। এই রচনাই আমি আমার জীবনের লক্ষ্য আদর্শ ডাক্তার হওয়াকে তুলে ধরেছি।

তোমার জীবনের লক্ষ্য রচনা বৈশিষ্ট্য চিত্র

ভূমিকা: 

একটি প্রবাদ আছে যে “লক্ষ্যহীন কোনো ব্যক্তি যেন এক হাল ছাড়া একটি নৌকা”।

অর্থাৎ এর মাধ্যমে বোঝানো হয়েছে যে প্রত্যেক মানুষেরই একটা নির্দিষ্ট কোনো জীবনের লক্ষ্য হওয়া উচিত। প্রত্যেক মানুষ কিছু না কিছু হতে চায় হয়ত কেউ ডাক্তার হতে চায়, কেউ প্রকৌশলী, কেউ ব্যবসায়ী, কেউ বা অভিনেতা, কেউ বা আবার অ্যাকাউন্টান্ট। আমারও জীবনে কিছু পরিকল্পনা রয়েছে যা‌ হচ্ছে ডাক্তার হওয়া। 

আমি চাই সকলের সেবা করতে। সেই সমস্ত দুস্থ মানুষদের কাছে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে যারা অসহায় খুবই। আমাদের দেশে জনবসতির ৭০% এর বেশীই গ্রাম্য এলাকায় বসবাস করে। তারা বিভিন্ন ধরনের রোগ বা ব্যাধীতে ভোগে। ‌সেখানে হাসপাতালের সংখ্যা যেমন‌ কম তেমনই অভাব ডাক্তারদের সংখ্যাও।

জীবন-এর লক্ষ্য সম্পর্ক-এ আমার ভাবনা:

প্রতি মানুষেরই জীবন যুদ্ধে কিছু লক্ষ্য বা টার্গেট হওয়া উচিত। কেউ বা হতে চায় অভিনেতা, কেউ‌ বা অন্য কিছু কিন্তু প্রত্যেকেরই লক্ষ্য সম্পর্কে স্থির ভাবনা বা চিন্তা থাকা দরকার। আমরা সবাই সর্বদা ভাবি‌ যে জীবন এ ‌কোনো এক লক্ষ্য পূরণ করব। কিন্তু কেউ তার ব্যর্থতা নিয়ে ভাবে না যে সেই কাজে ব্যর্থ হলে তার কাছে অন্য পন্থা বা পথ আছে কিনা। তাই আমার মতে জীবন যুদ্ধে শুধু একটি লক্ষ্য নিয়ে অগ্রসর হওয়া ‌ঠিক নয়।

ডাক্তারি লক্ষ্য নির্বাচন-এর কারণ:

আমার ছোট বেলা থেকেই ডাক্তার হয়ে ওঠার এক প্রবল ইচ্ছা ছিল। আর সেই ইচ্ছাকেই বাস্তবতার রূপ দেওয়ার জন্য আমার এই লক্ষ্য। মানুষ কে সেবা করা আমার দীর্ঘ দিনের ইচ্ছা। আমি কোনো দিনই মানুষের কষ্ট সহ্য করতে পারি না। চাই প্রত্যেক মুহূর্ত মানুষের সঙ্গ দিতে। অনেক এমন স্থান আছে এমন যেখানে আজ ও মানুষের কাছে সঠিক মত ঔষধ পৌঁছায় না।

তারা কোনো সাহায্য, কোনো পরিষেবা কিছুই পায় না। এমনকী সরকার থেকে প্রাপ্য অধিকার থেকে ও  বঞ্চিত হয় তারা।‌ সেই সমস্ত দুস্থ মানুষ দের জন্য এক সাহায্যের হাত এগিয়ে দেওয়া আমার মতে প্রত্যেক মানুষ এরই কর্তব্য হওয়া উচিত। আমি তাই ভাবি‌ যে ডাক্তারী নিয়ে অগ্রসর হওয়া আমার অনেকাংশেই সঠিক ভাবনা।

লক্ষ্য পূরনের প্রস্তুতি ও পথ:

ডাক্তারি নিয়ে পড়ার ইচ্ছাকে বাস্তব রূপ দেওয়ার জন্যই আমার দশম শ্রেণীর পর বিজ্ঞান নেওয়া। অষ্টম শ্রেণী থেকেই জীবন বিজ্ঞানের ওপর আমার এক বিশেষ লক্ষ্য ছিল। ওই বিষয়কে বিশেষ ভাবে গুরুত্ব দিতাম তখন থেকেই ডাক্তারী পড়ব বলে।

এর জন্য প্রথম‌ থেকেই যেমন জীবন বিজ্ঞানের ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিতাম তেমন ই দশম শ্রেণীর পরও জীববিদ্যার ওপর বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছি।  তার সঙ্গে সঙ্গে প্রতিটা বিষয়কে‌ও গুরুত্ব দি। তবে আজকাল প্রতিযোগিতা ও খুব বেশী। এর জন্য যেকোনো এক বিষয়ে মনোযোগ দেওয়া খুব প্রয়োজন।

তাই কোনো অন্য দিক এ চোখ না দিয়ে একটি দিকেই  লক্ষ্য স্থির করা উচিত এবং সেই উদ্দেশ্য বা লক্ষ্য পূরণ করার জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম ও দরকার।

বর্তমান পরিস্থিতি ও ডাক্তারী পেশা:

আমাদের দেশে গরীবদের সংখ্যা খুব বেশী। একদিকে যারা ধনী‌ তারা আর ও অর্থ উপার্জন করছে প্রতিদিন এবং আর ও ধনী‌ হয়ে উঠেছে, অন্য দিকে  গরীব অনাহার এ দিন কাটানো মানুষ আর ও গরীব হয়ে উঠছে। 

ফলে মৃত্যু সংখ্যা বাড়ছে দিনের পর দিন। ডাক্তার এমন প্রয়োজন যে প্রত্যেক গরীব মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সাহায্য করে যাবে ও বিনামূল্যে সেই সমস্ত দুস্থ মানুষদের চিকিৎসাও সেবা করে যাবে। এর জন্যই আমার মত-ঐ এরকম ডাক্তারের অভাব খুবই আমাদের দেশে।

আমার তারই প্রবল ইচ্ছা রয়েছে শৈশব থেকেই ডাক্তারী পড়ার, দেশ বা জাতির অক্লান্ত পরিশ্রমে সেবা করে যাওয়া। এই পেশা খুব সুন্দর যারা এই পেশা বিনামূল্যে করে তারা এর প্রকৃত মর্ম বোঝে।

উপসংহার:

অনেক সময় দেখা যায় যে কোনো মানুষ সামান্য চিকিৎসার অভাবে রোগাক্রান্ত বা কেউ হয়ত অকালমৃত্যু-র সম্মুখীন। আর্ত, অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো এই অবস্থা-এ আমি খুবই প্রয়োজন মনে করি। আমি সর্বদা মানুষের অকালমৃত্যু-র হাত থেকে তাদের কে রক্ষা করতে চাই এবং চাই এটা-ই আমার জীবনের মূল মন্ত্র হোক।


আমার জীবনের লক্ষ্য বা তোমার জীবনের লক্ষ্য রচনাটি পড়ে আপনার কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।বানান ভুল থাকলে কমেন্ট করে জানাবেন। সম্পূর্ণ রচনাটি পড়ার জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

Print Friendly, PDF & Email
English Essay, Autobiography, Grammar, and More...

Rakesh Routh

আমি রাকেশ রাউত, পশ্চিমবঙ্গের ঝাড়গ্রাম জেলায় থাকি। মেকানিকাল বিভাগে ডিপ্লোমা করেছি, বাংলায় কন্টেন্ট লেখার কাজ করতে ভালোবাসি।তাই বর্তমানে লেখালেখির সাথে যুক্ত।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

 

Recent Content